ঢাকা রবিবার, ৮ই ডিসেম্বর ২০১৯, ২৫শে অগ্রহায়ণ ১৪২৬

জাঁকজমকভাবে দারাজের পঞ্চম বর্ষপূর্তি


২৫ আগস্ট ২০১৯ ১৩:১৫

আপডেট:
২৬ আগস্ট ২০১৯ ২১:৫৬

বাংলাদেশের বাজারে যাত্রার পঞ্চম বর্ষপূর্তি উদযাপন করেছে ই-কমার্স ভিত্তিক মার্কেটপ্লেস দারাজ। সোমবার (২৬ আগস্ট) রাজধানীর হোটেল সোনারগাঁওয়ে আয়োজিত এক সংবাদ সম্মেলনের মধ্য দিয়ে আনুষ্ঠানিকভাবে নিজেদের পঞ্চম বর্ষপূর্তি উদযাপন করেছে দারাজ। একইসঙ্গে এ উপলক্ষ্যে গ্রাহকদের জন্য নয় দিনব্যাপী ‘ফিফথ অ্যানিভার্সারি ক্যাম্পেইন’ এর আনুষ্ঠানিক ঘোষণাও দিয়েছে প্রতিষ্ঠানটি।

৬ সেপ্টেম্বর থেকে শুরু হয়ে এ ক্যাম্পেইন চলবে ১৪ সেপ্টেম্বর পর্যন্ত।

সংবাদ সম্মেলনে জানানো হয়, দারাজের সঙ্গে থাকা গ্রাহকদের প্রতি ধন্যবাদ জ্ঞাপনের উদ্দেশ্যে টানা তৃতীয়বারের মতো আয়োজন করা হচ্ছে এই ক্যাম্পেইন। এই ক্যাম্পেইনে গ্রাহকদের জন্য থাকছে ডাবল টাকা ভাউচার, আই লাভ ভাউচার, ব্র্যান্ড ভাউচার, রাশ আওয়ার ভাউচার ও দৈনিক ফ্ল্যাশ সেল। এছাড়াও থাকছে পাঁচ টাকা ডিল, ৯৯ টাকা ডিল, সুপার বন্ধু অফারসহ দারাজ ব্র্যান্ডের বিভিন্ন পণ্য যেমন মগ, টি শার্ট, চাবির রিং, রেইন কোট ইত্যাদি।

অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন দারাজ বাংলাদেশের ব্যবস্থাপনা পরিচালক সৈয়দ মোস্তাহিদল হক, চিফ কমার্শিয়াল অফিসার ফুয়াদ আরেফিন তন্ময়, চিফ অপারেটিং অফিসার খন্দকার তাসকিন আলম। এছাড়াও উপস্থিত ছিলেন দারাজ গ্রুপের গ্লোবাল কো-সিইও জনাথন ডোয়ার ও গ্লোবাল হেড অব ক্রস বর্ডার ইয়ান পোটার।
সংবাদ সম্মেলনে দারাজ বাংলাদেশের ব্যবস্থাপনা পরিচালক সৈয়দ মোস্তাহিদল হক যাত্রা শুরুর পর নিজেদের বিভিন্ন কার্যক্রম তুলে ধরে বলেন, ২০১৪ সালে মাত্র পাঁচজন কর্মী নিয়ে ছোট পরিসরে আমাদের যাত্রা শুরুর পর আজকের এই অবস্থানে এসেছি। এখন আমাদের প্রায় দুই হাজার কর্মী। তখন আমাদের ৫০ জন সেলার ছিল, পণ্য ছিল প্রায় পাঁচ হাজার। এখন প্রায় ১৫ হাজার কর্মী নিয়ে ছয় লাখেরও বেশি পণ্য আছে দারাজে। ২০১৫ সালেও আমাদের রেভিনিউ ছিল প্রায় ৫৬ কোটি টাকা। ২০১৯ সালে শেষে এই অংক এক হাজার ২০০ কোটি পর্যন্ত পৌঁছাবে বলে আমরা আশা করছি। এখন আমরা মাসে প্রায় ১০ লাখ অর্ডার প্রসেস করার সক্ষমতা অর্জন করেছি।

‘তবে এই যাত্রা মোটেও সহজ ছিল না। বিভিন্ন ধরনের চ্যালেঞ্জ অতিক্রম করতে হয়েছে আমাদের।’ যোগ করেন তিনি।

প্রতিষ্ঠানটির চিফ অপারেটিং অফিসার খন্দকার তাসকিন তন্ময় বলেন, প্রতিদিন এখন ছয় শতাধিক পণ্য ডেলিভারি করার সক্ষমতা আছে আমাদের। পাঁচ শতাধিক কর্মী ও বড় এক লজিস্টিক ফ্লিট নিয়ে দ্রুত সময়ে গ্রাহকদের পণ্য তাদের কাছে পৌঁছে দিতে কাজ করছি আমরা।

ক্যাম্পেইন চলাকালীন ক্রেতাদের কেনাকাটার সুবিধায় বিভিন্ন পেমেন্ট পার্টনারদের মাধ্যমে ডিসকাউন্ট ও ক্যাশব্যাক অফারও রেখেছে দারাজ। দারাজের ক্যাম্পেইনে মিডিয়া পার্টনার হিসেবে থাকছে বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম।

২০১৪ সালের ২৬ আগস্ট বাংলাদেশে অনুষ্ঠানিকভাবে নিজেদের কার্যক্রম শুরু করে দারাজ।