ঢাকা শুক্রবার, ১৫ই নভেম্বর ২০১৯, ১লা অগ্রহায়ণ ১৪২৬


অবশেষে নিজের বক্তব্য নিয়ে মুখ খুললেন তাহেরী


৫ সেপ্টেম্বর ২০১৯ ২০:৪০

আপডেট:
১৫ নভেম্বর ২০১৯ ০০:৪০

আমি ১৭ বছর ধরে ওয়াজ করি। ১৭ বছরের ওয়াজের পরিপ্রেক্ষিতে যে সমস্ত শব্দগুলো প্রশ্নবিদ্ধ হলো, আমার দুঃখ হলো সেখানে আমাকে ধর্ম অবমাননার একটা পর্যায়ে ফেলে দেওয়ার অপচেষ্টা হচ্ছে। ২ অথবা আড়াই ঘন্টা ওয়াজ করলে প্রাসঙ্গিক অনেক কথা আসতে পারে। আমি এটাই বলতে চাই, আমার কথাগুলো ধর্ম এবং কুরআন-সুন্নাহর সঙ্গে সাংঘর্ষিক কি না। যদি সাংঘর্ষিক হত তাহলে বাস্তবিক অর্থে আদালত আমার কথাগুলোকে ধর্ম অবমাননা মনে করতেন।

সম্প্রতি একটি বেসরকারি টেলিভিশনের সরাসরি টক-শো অনুষ্ঠানে এক প্রশ্নের জবাবে মুফতি মোহাম্মদ গিয়াস উদ্দিন তাহেরী এসব কথা বলেন।


তিনি বলেন, হুট করে দুই আড়াই ঘন্টার বক্তব্য থেকে কেটে নিয়ে কেউ যদি শুধুমাত্র গানটাকে প্রকাশ করে, আগে কি বলেছি এবং পরে কি বলেছি, সেটা জাতির সামনে তুলে ধরল না; এটা অত্যন্ত দুঃখজনক। এডিটিংয়ের মাধ্যমে আমাকে যাচাই করা যাবেনা, যাচাই করতে হলে সম্পূর্ণ ওয়াজ শুনতে হবে।

সামাজিক যোগাযোগের মাধ্যমে সমালোচিত এ বক্তা বলেন, আমাদের বাংলাদেশে অনেক ওলামায়ে কেরাম আছেন। একেকজন ওলামায়ে কেরামের কথা বলার ধরণ একেক রকম। কুরআন-সুন্নাহর কথাগুলো একেক ওলামায়ে কেরাম একেকভাবে উপস্থাপন করেন। তাদের উপস্থাপন করার ধরনটাই একেক রকম।

তাহেরী বলেন, ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনে দায়ের করা মামলার আবেদন খারিজ করে দিয়েছেন আদালত। আসলে ধর্ম অবমাননার কিছু পাননি বলে মামলাটি খারিজ করেছেন।

তিনি আরও বলেন, একজন মানুষ সবার কাছে ভালো হতে পারে না। একজন বক্তা যখন ওয়াজ করেন সেখানে প্রসঙ্গক্রমে অনেক কিছুই আসতে পারে। যে কথাগুলো কোরআন-সুন্নাহর সাথে সাংঘর্ষিক নয়, সে কথাগুলো বলতে কোন আপত্তি নেই বলেই আমি মনে করি।

নতুনসময়/আইকে