ঢাকা বুধবার, ৫ই আগস্ট ২০২০, ২২শে শ্রাবণ ১৪২৭


দেশের রাজনীতির শুণ্যতা শুধু জাতীয় পার্টিই পূরণ করতে পারবে- জিয়াউদ্দিন আহম্মেদ বাবলু


২৯ জুলাই ২০২০ ১৯:২৯

আপডেট:
৫ আগস্ট ২০২০ ০৮:৪৩

ছবি সংগৃহীত

বাংলাদেশের রাজনীতিতে যে শুণ্যতা বিরাজ করছে তা শুধু জাতীয় পার্টিই পূরণ করতে পারবে বলে মন্তব্য করেছেন জাতীয় পার্টির মহাসচিব জিয়াউদ্দিন আহম্মেদ বাবলু। তিনি বলেন, জাতীয় পার্টি সুসংহত ও ঐক্যবদ্ধ হয়ে বাংলাদেশের রাজনীতিতে দূর্ভেদ্য রাজনৈতিক শক্তি হিসেবে আত্মপ্রকাশ করেছে। আগামী জাতীয় সংসদ নির্বাচনে জাতীয় পার্টি তিনশো আসনেই একক ভাবে নির্বাচনের প্রস্তুতি নিয়ে এগিয়ে যাবে। জাতীয় পার্টি বাংলাদেশের রাজনীতিতে একমাত্র সম্ভাবনাময় দল। কারন, জাতীয় পার্টি হরতাল, জ¦ালাও-পোড়াও এবং ধংসাত্মক রাজনীতি পছন্দ করেনা। তিনি বলেন, করোনা ও বন্যা পরিস্থিতি উন্নতি হলেই জাতীয় পার্টি সারাদেশে সংগঠনকে শক্তিশালী করতে কর্মসূচি গ্রহণ করবে। প্রতিটি শাখা কমিটিতে সম্মেলনের মাধ্যমে জাতীয় পার্টি পূণর্বিন্যাস করা হবে। তিনি বলেন, জাতীয় পার্টি ইতিবাচক রাজনীতি করে তাই বর্তমান সরকারের স্বাস্থ্য বিভাগের অব্যবস্থাপনা ও দুনীর্তি নিয়ে সংসদে সোচ্চার ভূমিকা রেখেছে। তিনি বলেন, জাতীয় পার্টির চেয়ারম্যান ও বিরোধী দলীয় উপনেতা গোলাম মোহাম্মদ কাদের এমপি গেলো অধিবেশনের যে বক্ততৃা করেছেন তা অসাধারণ। এছাড়া পার্টির কো-চেয়ারম্যান মুজিবুল হক চুন্নু এমপি, পীর ফজলুর রহমান এমপি সহ জাতীয় পার্টির সংসদ সদস্যরা স্বাস্থ্য বিভাগের অব্যবস্থাপণা নিয়ে কঠোর ভাষায় সমালোচনা করেছেন।

সাংবাদিকদের এক প্রশ্নের জবাবে জাতীয় পার্টি মহাসচিব জিয়াউদ্দিন আহম্মেদ বাবলু বলেন, জাতীয় পার্টি একটি গণতান্ত্রিক দল। তিনি বলেন, গেলো বছর ২৮ ডিসেম্বর জাতীয় কাউন্সিল এবং পার্টির গঠনতন্ত্রের ক্ষমতা বলে পার্টি চেয়ারম্যান দলের স্বার্থ বিবেচনায় যে কোন সিদ্ধান্ত নিতে পারেন। পার্টির কাউন্সিলররা পার্টি চেয়ারম্যানকে সেই ক্ষমতা প্রদান করেছে। তাই চেয়ারম্যান পার্টির প্রয়োজনে যে সিদ্ধান্ত গ্রহণ করবে সেটাই গণতান্ত্রিক। প্রতিটি রাজনৈতিক দলেই পার্টির প্রধানের বিশেষ ক্ষমতা আছে। এবং রাজনীতিতে নেতৃত্বের পরিবর্তন হচ্ছে একটি চলমান প্রক্রিয়া।

বিকেলে জাতীয় পার্টি মহাসচিব পার্টির কেন্দ্রীয় কার্যালয় কাকরাইল চত্বরে পল্লীবন্ধুর প্রতিকৃতিতে পুস্পস্তবক অর্পণ করে গণমাধ্যমের সাথে কথা বলেন। এসময় অন্যান্যদের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন- জাতীয় পার্টির প্রেসিডিয়াম সদস্য মীর আবদুস সবুর আসুদ, এড. মো. রেজাউল ইসলাম ভুইয়া, আলমগীর সিকদার লোটন, লিয়াকত হোসেন খোকা এমপি, চেয়ারম্যানের উপদেষ্টা ড. মো. নূরুল আজহার, মনিরুল ইসলাম মিলন, জহিরুল আলম রুবেল, ভাইস চেয়ারম্যান আহসান আদেলুর রহমান আদেল এমপি, যুগ্ম মহাসচিব গোলাম মোহাম্মদ রাজু, ফকরুল আহসান শাহজাদা, মো. বেলাল হোসেন, সম্পাদক মন্ডলীর সদস্য সুলতান মাহমুদ, মো. হুমায়ুন খান, জহিরুল ইসলাম মিন্টু, বীরমুক্তিযোদ্ধা মো. ইসহাক ভুইয়া, যুগ্ম সম্পাদক মন্ডলীর সদস্য শারমিন পারভীন লিজা, এমএ সোবহান, আজহারুল ইসলাম সরকার, সমরেশ মন্ডল মানিক, মো. শাহজাহান কবির, মো. শহীদ হোসেন সেন্টু, ডা. মোঃ আব্দুল্লাহ আল ফাত্তাহ, কেন্দ্রীয় নেতা- আবুল কালাম আজাদ, মাওলানা খলিলুর রহমান সিদ্দিকী, ইব্রাহিম আজাদ, মো. সালাউদ্দিন ভুইয়া, আলহাজ¦ আব্দুল বাতেন, যুব সংহতি ঢাকা দঃ আহŸায়ক গাজী এমএ সালাম, মাহবুবুর রহমান খসরু, সামসুল হক, কাকলী আক্তার কাকন প্রমুখ। এছাড়াও জাতীয় পার্টি ও অঙ্গ-সংগঠনের নেতা-কর্মীরা পার্টির মহাসচিবকে কাছে পেয়ে বিপুল করোতালি শ্লোগান দেয়। পরে বিভিন্ন সংগঠনের পক্ষ থেকে ফুলের শুভেচ্ছা জানায় জাতীয় পার্টির মহাসচিবকে।