ঢাকা বুধবার, ৫ই আগস্ট ২০২০, ২২শে শ্রাবণ ১৪২৭


মানবতার ফেরিওয়ালা খ্যাত নোয়াখালীর কিং মোজাম্মেল করোনা মহামারীতে অসহায়দের মাঝে বিতরণ করলেন ২ টন চাউল!


৯ জুলাই ২০২০ ২৩:০২

আপডেট:
৯ জুলাই ২০২০ ২৩:০৬

 

খাঁন মাহমুদ (স্টাফ করেসপন্ডেন্ট): মহামারী করোনা ভাইরাসে যখন জর্জরিত পুরো বাংলাদেশ সমাজে বিত্তবানরা প্রাথমিক পর্যায়ে প্রায় অনেকেই ত্রান বিতরণ করেছেন। শেষ সময়ে এসে অসচ্ছল পরিবারের মাঝে ত্রাণ বিতরণ প্রায় বন্ধ হয়ে গিয়েছে, ঠিক তখনই মানবতার ফেরিওয়ালা খ্যাত কিং মোজাম্মেল গরীব অসহায় মানুষদের মাঝে ২ টন চাল বিতরণ করলেন।

কোভিড-১৯ বা করোনা বাংলাদেশের সংক্রমণ শুরুর পূর্বে থেকেও এলাকার গরিব,নিম্নবিত্ত,মধ্যবিত্ত অসহায় মানুষদের ত্রাণ ও অর্থ দিয়ে সহায়তা করেছেন মানবতার কিং খ্যাত মোজাম্মেল।পাশাপাশি বিভিন্ন ব্যতিক্রমধর্মী উদ্যোগ নিয়েছিলেন রমজান মাসে তিনি প্রতিদিন ২০০ থেকে ৩৫০ লিটার দুধ বিতরণ করেছেন।পরবর্তী অসহায় গরীব মানুষদের ঈদ উপহার ও নগদ টাকাও বিতরণ করেন।

বিশেষ করে সোনাইমুড়ি উপজেলার বিভিন্ন ইউনিয়ন ও ওয়ার্ডগুলোতে তিনি নগদ অর্থ এবং ত্রাণ বিতরণ করে আসছেন। এছাড়াও তিনি এলাকার রাস্তাঘাট মেরামত স্কুল, কলেজ,মাদ্রাসা এতিমখানা নির্মাণে তিনি অনেক সহায়তা করেছেন।বর্তমানে তিনি জেলা আওয়ামী লীগের ত্রাণ ও সমাজকল্যাণ বিষয়ক সম্পাদক।

সরেজমিনে সোনাইমুড়ী উপজেলার বিভিন্ন ইউনিয়ন ও ওয়ার্ডের সাধারণ মানুষদের সাথে কথা বলে জানা যায় কিং মোজাম্মেল তিনি আমেরিকা থেকে বাংলাদেশে আসার পর থেকেই আমাদের মতো অসহায় গরীব মানুষের পাশে সবসময় সাহায্যের হাত বাড়িয়ে দিয়েছেন।বিএনপি জামাত-শিবির ও যারা এলাকায় সন্ত্রাসী কর্মকাণ্ড করত
তিনি তাদের বিরুদ্ধে সব সময় সোচ্চার ছিলেন। তাদের সন্ত্রাসী কর্মকাণ্ডকে তিনি প্রতিরোধ করেছেন। এক সময় সোনাইমুড়ী উপজেলা সন্ত্রাসীদের অভয়ারণ্য ছিল। কিং মোজাম্মেল প্রশাসনের সহায়তায় তিনি সন্ত্রাসীদের দমন করেছেন। এখন আমরা এলাকায় নির্বিধায় নির্বিঘ্নে চলাচল করতে পারি। আমরা যে কোন সমস্যায় পড়লে কিং মোজাম্মেল এর কাছে গেলে তিনি আমাদের সহায়তা করেন।

এদিকে কিং মোজাম্মেলের সাথে কথা হলে তিনি বলেন, ভোট করার জন্য আমি রাজনীতি করি না।জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান ও মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার আদর্শ লালন করে আাম রাজনীতি করি।আমার দল থেকে সহায়তা করছে ,আমাদের এমপি এইচ.এম ইব্রাহিম তিনিও অনেক ত্রাণ ও সহায়তা দিয়েছেন। আমার ব্যক্তিগত থেকে করোনাকালীন সময়ে সহায়তা করেছি' সেটা আমার জন্য সৌভাগ্য।
আজও অসহায়দের মাঝে ২টন চাউল বিতরণ করেছি ।
আপনারা জানেন, বর্তমান করোনায় গোটা পৃথিবী বিধ্বস্ত। বাংলাদেশও এর বাহিরে নয়।আজ পৃথিবীতে ১ কোটি ২১ লাখ মানুষ করোনায় সংক্রমিত হয়েছে। মৃত্যুবরণ করেছে ৫ লক্ষ ৫৪ হাজারের অধিক। আমাদের বাংলাদেশেও ১,৭৫,৪৯৪ জন আক্রান্ত হয়েছে। ২২৩৮ জন মৃত্যুবরণ করেছে।

তাই সবার প্রতি অনুরোধ করি
আপনারা অযথা বাইরে বের হবেন না ও ঘোরাফেরা করবেন না।সরকার কর্তৃক বিধি-বিধান মেনে চলবেন। সামাজিক দূরত্ব বজায় রাখবেন। সবসময় হ্যান্ড স্যানিটাইজার বা সাবান দিয়ে হাত পরিষ্কার করবেন।

বিত্তবানদের কাছে আমার উদাত্ত আহ্বান আপনারা যারা ধনবান আছেন গরিব মানুষের জন্য প্লিজ এগিয়ে আসবেন।সার্মথ্যনুযায়ী সবাই যদি সাহায্য সহযোগিতা করেন আমার মনে হয় গরীব মানুষরা এই করোনাকালীন সময়ে না খেয়ে থাকবে না। সবাই ভাল থাকবেন সুস্থ থাকবেন। জয় বাংলা, জয় বঙ্গবন্ধু।