ঢাকা শুক্রবার, ৩রা এপ্রিল ২০২০, ২০শে চৈত্র ১৪২৬


‘তারেক রহমানের নির্দেশনা অনুসরণে করোনা মোকাবেলা সহজ হবে’


২৬ মার্চ ২০২০ ২০:১২

আপডেট:
৩ এপ্রিল ২০২০ ০৩:২৮

বিএনপির সিনিয়র যুগ্ম মহাসচিব অ্যাডভোকেট রুহুল কবির রিজভী বলেছেন, দেশের এই কঠিন সংকটকালে তারেক রহমান যে দিকনির্দেশনামূলক বক্তব্য দিয়েছেন, যে সকল প্রস্তাব দিয়েছেন, দাবি জানিয়েছেন তা কার্যকর হলে ও অনুসরণ করলে করোনা মোকাবেলা সহজসাধ্য হবে। বুধবার (২৫ মার্চ) দুপুরে নয়াপল্টনে দলের কেন্দ্রীয় কার্যালয়ে ভিডিও কনফারেন্সের মাধ্যমে এক সংবাদ সম্মেলনে তিনি এসব কথা বলেন। গতকাল বুধবার বাংলাদেশ সময় ভোরে লন্ডন থেকে এক ভিডিও বক্তৃতায় করোনা ভাইরাস মোকাবেলায় তারেক রহমান অবিলম্বে দেশে ‘চিকিৎসা জরুরি অবস্থা’ ঘোষণার জন্য সরকারের প্রতি আহ্বান জানান।

রিজভী বলেন, এই ভয়াল দুর্যোগময় সময়ে, মহাক্রান্তিকালে দেশবাসী, সরকার, সাধারণ জনগণ ও বিএনপির নেতাকর্মীদের উদ্দেশ্যে ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান তারেক রহমানের অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ ও তাৎপর্যপূর্ণ বক্তব্যের প্রতি সকলের মনোযোগ আকর্ষণ করছি।

তিনি বলেন, তারেক রহমান বলেছেন, দোষারোপের রাজনীতি, মুখরোচক বাক্যবাণ, কথার ফুলঝুরি ছড়িয়ে কিংবা হুমকি-ধামকি শক্তি দেখিয়ে এই ঘোর বিপদ মোকাবিলা সম্ভব নয়। তাই এই বিপদের দিনে প্রতিটি মানুষকে একজন দায়িত্বশীল নাগরিকের ভূমিকা পালন করতে হবে। দেশের প্রতিটি নাগরিককে নিজের অবস্থা-অবস্থান কিংবা রাজনৈতিক পরিচয় ভুলে গিয়ে সর্বোচ্চ সতর্কতার সঙ্গে নিজেকে, নিজের পরিবারকে এবং প্রতিবেশীকে নিরাপদ রাখার নীতি গ্রহণ করতে হবে।

তিনি বলেন, আমরা আজ এমন এক সময়ে আপনাদের সঙ্গে কথা বলছি, যখন গোটা বিশ্ববাসী প্রাণঘাতি করোনাভাইরাসের ভয়াবহতায় আতঙ্কে দিন কাটাচ্ছেন। সমগ্র বিশ্ব এক অনিশ্চয়তার মধ্য দিয়ে চলছে। মহামারি ছড়িয়ে পড়েছে দেশে দেশে। প্রতি মুহূর্তে নতুন আক্রান্ত আর মৃত্যুর মিছিল বাড়ছে লাফিয়ে লাফিয়ে। লকডাউন, আইসোলেশন, সেল্ফ কোয়ারেনটাইনে সম্পূর্ণরূপে থমকে পড়েছে স্বাভাবিক জনজীবন। প্রতিটি দেশ ভাইরাসের প্রাদুর্ভাব হতে পরিত্রাণ পেতে অন্য দেশ থেকে নিজেদের বিচ্ছিন্ন করে ফেলেছে।

রিজভী বলেন, ভয়ংকর এক কঠিন পরিস্থিতিতে উপনীত হয়েছি আমরাসহ বিশ্ববাসী। সরকারি হিসাবে গতকাল বুধবার পর্যন্ত ৩৯ জন আক্রান্ত আর ৫ জনের মৃত্যুর খবর প্রচার করা হয়েছে। কেভিড-১৯ সংক্রমণ নিশ্চিত হওয়ার জন্য ন্যূনতম প্রয়োজনীয় টেস্ট কিট, চিকিৎসকদের পিপিই কিংবা হাসপাতালে পর্যাপ্ত আইসিইউ’র প্রচণ্ড অভাব এদেশে। সারা দেশের হাসপাতাল থেকে হাজার হাজার স্যাম্পল আসছে অথচ টেস্ট করতে পারছে মাত্র ৭০-৮০টি। এই অপ্রস্তুত দৃশ্যপটের মধ্যে সামনে আরো কঠিন পরিস্থিতি ধেয়ে আসছে। গোটা দেশবাসী শংকিত-আতংকিত। এই অবস্থার দ্রুত অবসান জরুরি।

নতুনসময়/আইকে