ঢাকা সোমবার, ৬ই এপ্রিল ২০২০, ২৪শে চৈত্র ১৪২৬


রাজধানীতে ৪২ জন ছিনতাইকারীকে গ্রেফতার করেছে ডিবি


২৯ ফেব্রুয়ারি ২০২০ ১৫:৩৩

আপডেট:
৬ এপ্রিল ২০২০ ১৫:৫৭

ছবি সংগৃহীত

ঢাকা মেট্রোপলিটন পুলিশের গোয়েন্দা বিভাগ (ডিবি) রাজধানীতে বিশেষ অভিযান পরিচালনা করে ছিনতাইয়ের সাথে জড়িত ৪২ জনকে গ্রেফতার করেছে। ২৮ ফেব্রুয়ারি ২০২০ তারিখ রাজধানীর বিভিন্ন এলাকায় অভিযান পরিচালনা করে তাদেরকে গ্রেফতার করা হয়।

গ্রেফতারকৃত ছিনতাইকারীদের হেফাজত হতে ৭৪ টি বিভিন্ন কোম্পানীর মোবাইল ফোন, ১টি ট্যাব ও ১টি ল্যাপটপ উদ্ধার করা হয়। এছাড়া ছিনতাইয়ের কাজে ব্যবহৃত ১৩টি ছুরি ও ২টি চাপাতি উদ্ধার করা হয়।

শনিবার (২৯ ফেব্রুয়ারি) বেলা ১১.৩০টায় ডিএমপি মিডিয়া সেন্টারে আয়োজিত প্রেস ব্রিফিংয়ে এ বিষয়ে বিস্তারিত জানান ডিএমপির অতিরিক্ত পুলিশ কমিশনার (ডিবি) মোঃ আবদুল বাতেন বিপিএম, পিপিএম।

ছিনতাইকারীরা সুযোগ পেলে ছিনতাই করে উল্লেখ করে অতিরিক্ত পুলিশ কমিশনার ডিবি বলেন, ধৃত আসামীরা ছিনতাইকারী ও সালাম পার্টি দলের সক্রিয় সদস্য। এ চক্রের সদস্যরা রাজধানীর সাতরাস্তা, নাবিস্কো, মহাখালী বাস টার্মিনাল, মহাখালী রেলক্রসিং, বনানী, গুলশান-১, গুলশান লিংক রোড, রামপুরা ব্রীজ, ধানমন্ডি, বংশাল, চকবাজার, কলাবাগান, গুলিস্তান, যাত্রাবাড়ী, সায়েদাবাদ, নিউমার্কেটসহ বিভিন্ন এলাকায় গলিপথগুলোতে যাতায়াতকারী রিক্সা বা পায়ে হাঁটা যাত্রীদের ছুরি দেখিয়ে সর্বস্ব ছিনতাই করে।

প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে প্রাপ্ত তথ্য সম্পর্কে তিনি জানান, ছিনতাইকারীরা তাদের সুবিধামত কোন স্থানে রিক্সার যাত্রী অথবা পথচারীদের ‘সালাম’ দেয় যেন তারা পরস্পর পরস্পরের পূর্ব পরিচিত। সালাম পেয়ে রিক্সার যাত্রী/পথচারী থামলে তারা কাছে এসে চাকু দিয়ে আঘাত করার ভয় দেখিয়ে যাত্রী/পথচারীদের সর্বস্ব কেড়ে নেয়।

তিনি আরো বলেন, ছিনতাইকৃত মোবাইল মোবাইল পার্টসের দোকান ও মোবাইল কেনা-বেচা করে এমন দোকানে বিক্রি করে। ধরা পড়া ঠেকাতে দোকানদার চোরাই মোবাইল কিনে মোবাইল বিক্রি না করে এর ক্ষুদ্র যন্ত্রাংশ বিক্রি করে। এমনকি দোকানিরা মোবাইলের মাদারবোর্ড ও আইএমইআই নম্বর পাওয়া যাবে এমন পার্টস বিক্রি করে না।

ঢাকা মহানগরের গোয়েন্দা দল এ ধরণের কয়েকটি ঘটনার তদন্তে নেমে এ চক্রগুলির সন্ধান পায়। এর সাথে জড়িত আরো যারা রয়েছে তাদেরকে গ্রেফতারের চেষ্টা অব্যাহত আছে।

গ্রেফতারকৃতদের বিরুদ্ধে সংশ্লিষ্ট থানায় মামলা রুজু প্রক্রিয়াধীন।