ঢাকা মঙ্গলবার, ২২শে সেপ্টেম্বর ২০২০, ৮ই আশ্বিন ১৪২৭


টাঙ্গাইলের ঐতিহ্যবাহী ২০১ গম্বুজ মসজিদে জুমার নামাজ বন্ধ


১৯ মার্চ ২০২০ ২১:০৭

আপডেট:
২২ সেপ্টেম্বর ২০২০ ২০:১৯

বিশ্বব্যাপী ছড়িয়ে পড়া করোনাভাইরাস আতঙ্কে টাঙ্গাইলের গোপালপুর উপজেলার ঐতিহ্যবাহী ২০১ গম্বুজ মসজিদে শুক্রবারের জুমার নামাজ বন্ধ করা হয়েছে।

আজ বৃহস্পতিবার গোপালপুর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মুস্তাফিজুর রহমান তথ্যটি নিশ্চিত করেছেন।

মসজিদটির প্রতিষ্ঠাতা মুক্তিযোদ্ধা রফিকুল ইসলাম  বলেন, ‘বিশ্বজুড়ে করোনাভাইরাস মহামারি আকার ধারণ করেছে। গোপালপুরের ঐতিহ্যবাহী ২০১ গম্বুজ মসজিদ দেখতে প্রতিদিন কমপক্ষে ১০ থেকে ১৫ হাজার দর্শনার্থী আসেন। সেই সাথে শুক্রবার জুমার নামাজে গড়ে ২৫ থেকে ৩০ হাজার মুসল্লি নামাজ আদায় করেন। দর্শনার্থী ও মুসল্লিদের সুরক্ষার জন্য মসজিদ কমিটি শুক্রবারে জুমার নামাজ স্থগিত রাখার সিদ্ধান্ত নিয়েছি।’

রফিকুল ইসলাম আরও বলেন, ‘মসজিদ কমিটির এ সিদ্ধান্তের জন্য আন্তরিকভাবে দুঃখ প্রকাশ করেছেন। পরিস্থিতি স্বাভাবিক না হওয়া পর্যন্ত সিদ্ধান্ত বলবৎ থাকবে।’

প্রসঙ্গত, টাঙ্গাইলের গোপালপুর উপজেলার নগদা শিমলা ইউনিয়নের দক্ষিণ পাথালিয়া গ্রামের ২০১ গম্বুজ বিশিষ্ট মসজিদটির নির্মাণকাজ এখনো চলমান। বিশ্বের সর্বোচ্চ সংখ্যক গম্বুজ এবং দ্বিতীয় উচ্চতম মিনার বিশিষ্ট মসজিদ এটি। ২০১টি গম্বুজ ও নয়টি সু-উচ্চ মিনার দিয়ে সজ্জিত একটি পূর্ণাঙ্গ মসজিদ কমপ্লেক্স হিসেবে এই মসজিদের নকশা করা হয়েছে। মসজিদটির নির্মাণ কাজ শেষ পর্যায়ে। মসজিদের ছাদে ৮১ ফুট উচ্চতার একটি গম্বুজ রয়েছে। এই বড় গম্বুজের চারপাশে ছোট ছোট গম্বুজ রয়েছে ২০০টি। এদের প্রত্যেকের উচ্চতা ১৭ ফুট। মূল মসজিদের চার কোণায় রয়েছে চারটি মিনার। এদের প্রত্যেকটির উচ্চতা ১০১ ফুট। পাশাপাশি আরও চারটি মিনার রয়েছে ৮১ ফুট উচ্চতার। ১৪৪ ফুট দৈর্ঘ্য ও ১৪৪ ফুট প্রস্থের দ্বিতল এই মসজিদে এক সঙ্গে প্রায় ১৫ হাজার মুসল্লি নামাজ আদায় করতে পারবেন। মসজিদের ভেতরে চার দেয়ালের টাইলসে অঙ্কিত রয়েছে পূর্ণ পবিত্র কুরআন শরিফ। মসজিদের প্রধান ফটক নির্মাণে ব্যবহার করা হচ্ছে ৫০ মণ পিতল। আজান প্রচারের জন্য মসজিদে সবচেয়ে উঁচু মিনার নির্মাণ করা হচ্ছে।