ঢাকা শুক্রবার, ২০শে সেপ্টেম্বর ২০১৯, ৬ই আশ্বিন ১৪২৬


বাংলাদেশি শ্রমিকদের চিন্তামুক্ত করল মালায়েশিয়া


১৩ সেপ্টেম্বর ২০১৮ ১৭:০৭

আপডেট:
১৪ সেপ্টেম্বর ২০১৮ ০৬:৩৪

ফাইল ছবি

মালয়েশিয়ায় কর্মরত বিদেশি কর্মীরা ১০ বছরের বেশি ভিসা নবায়ন করতে পারবে। সম্প্রতি এমন ঘোষণা দিয়েছে দেশটির সরকার। মালয়েশিয়া সরকারের এমন সিদ্ধান্তে বাংলাদেশি শ্রমিকরা চিন্তামুক্ত হলো। অন্যান্য দেশের কর্মীদেরও হতাশা কাটলো।

চলতি বছরের ২২ জুন এক নোটিশে বলা হয়, বিদেশি কর্মীদের ১০ বছরের বেশি ভিসা দেয়া হবে না। ফলে লক্ষাধিক বাংলাদেশি কর্মীদের দেশে ফেরার আশঙ্কা তৈরি হয়েছিল। শুধু বিদেশি কর্মীরাই নয় মালিকপক্ষও ছিল শঙ্কায়। বিভিন্ন কোম্পানির মালিকপক্ষ সরকারের কাছে আবেদন করলে এবং সংশ্লিষ্টদের সঙ্গে বাংলাদেশ দূতাবাসের কর্মকর্তারা আলোচনার মাধ্যমে তাদের অক্লান্ত প্রচেষ্টায় দক্ষ কর্মীদের অভাব পূরণে সরকার এ সিদ্ধান্ত থেকে ফিরে এসেছে।

এ বিষয়ে মালয়েশিয়ায় মানবসম্পদ মন্ত্রী এম কোলাসিগারান জানিয়েছেন, কর্মরত বিদেশি কর্মীরা ১০ বছর পর আবার ভিসা নবায়ন করে দেশটিতে অবস্থান করতে পারবে। ২৯ আগস্ট মন্ত্রিপরিষদ এ সিদ্ধান্তে তাদের সম্মতি জানান। মন্ত্রিপরিষদের নেয়া এমন সিদ্ধান্ত কার্যকর হবে ১ অক্টোবর থেকে।

মন্ত্রী আরো বলেছেন, ১৯৯২ সাল থেকে সরকার কর্তৃক সিদ্ধান্তে বিদেশিকর্মী নিজেরাই তাদের ভিসা কর পরিশোধ করতো, পরে ২০১৬ সালের ২৫ মার্চ মন্ত্রিপরিষদ সিদ্ধান্ত নেয় যে, কর্মীরা নয় নিয়োগকর্তারাই তাদের বিদেশি কর্মীদের লেভি পরিশোধ করবে। এটি চলতি বছরের জানুয়ারি মাস থেকে কর্যকর হয়েছে। এ সিদ্ধান্তের ফলে নিয়োগকর্তারা তাদের দক্ষ বিদেশি কর্মীদের কাজে বলবৎ রাখতে পারবে।

স্থানীয় একাধিক সংবাদ মাধ্যমে বলা হয়, বিদেশি কর্মীরা ১০ বছরের পর শুধুমাত্র তিন বছর বা তিনবার তাদের ভিসা নবায়ন করতে পারবে বলে জানান এম কোলাসিগারান। তবে, এসব বিদেশি কর্মীরা এন্ট্রি পারমিট, স্থায়ীভাবে বসবাস বা মালয়েশিয়ার নাগরিকত্বের জন্য আবেদন করতে পারবে না বলেও জানান তিনি।

এ বিষয়ে দূতাবাসের শ্রম কাউন্সিলর মো. সায়েদুল ইসলাম জাগো নিউজকে বলেন, গত ২২ জুন যখন মালয়েশিয়া সরকার ঘোষণা দেয় ১০ বছরের বেশি বিদেশি কর্মীদের ভিসা নবায়ন করবে না। এমন ঘোষণায় আমাদের দেশের দক্ষকর্মীরা হতাশায় ভুগছিলেন।

এমএ