ঢাকা বৃহঃস্পতিবার, ১৭ই অক্টোবর ২০১৯, ৩রা কার্তিক ১৪২৬

বুয়েট ছাত্র ফাহাদের মায়ের আহাজারি শুনবে কে ?


৭ অক্টোবর ২০১৯ ১৮:০৮

আপডেট:
৮ অক্টোবর ২০১৯ ১৩:০১

ছবি সংগৃহিত

হত্যাকাণ্ডের শিকার বাংলাদেশ প্রকৌশল বিশ্ববিদ্যালয়ের (বুয়েট) শিক্ষার্থী আবরার ফাহাদের কুষ্টিয়া শহরের শহীদ বীর মুক্তিযোদ্ধা আসাদ সড়কের (পিটিআই রোডের) বাড়িতে চলছে শোকের মাতম। মেধাবী ছেলের মৃত্যুর খবরে মা রোকেয়া খাতুন বারবার মুর্ছা যাচ্ছেন। শোকার্ত আহাজারি করে ছেলের নৃশংস হত্যাকাণ্ডের সাথে যারা জড়িত তাদের দৃষ্টান্তমূলক বিচার দাবি করেন।

পরিবারের সদস্যরাসহ প্রতিবেশীরাও ভেজা চোখে এই হত্যাকাণ্ডের বিচার চাইছেন। নিহত ফাহাদ ব্রাকের সাবেক কর্মকর্তা বরককউল্লাহ’র বড় ছেলে।

এলাকাবাসী এবং আবরারের পরিবারের সদস্যরা জানান, স্কুলজীবন থেকেই তিনি মেধাবী ছিলেন। কোনো রাজনৈতিক সংগঠনের সাথে কোনো সম্পৃক্ততা নেই তার।

ফাহাদের ভাই ঢাকা কলেজ’র বিজ্ঞান বিভাগের ছাত্র আবরার ফায়াজ জানান, সামনে পরীক্ষা তাই ফাহাদ রবিবারই বাড়ি থেকে তার প্রিয় ক্যাম্পাস বুয়েটে যায়।

তিনি আরও বলেন, আজ সোমবার সকাল ১০টায় বাবার (বরকতউল্লাহ) কাছে ফোন করেন ভাইয়ার (ফাহাদের) এক রুমমেট। প্রথমে ফোন করে অসুস্থতার কথা জানালেও কিছুক্ষণ পরে ফোন দিয়ে তার মৃত্যুর খবর দেয় সে।

বরকতউল্লাহ’র গ্রামের বাড়ি কুষ্টিয়ার কুমারখালী উপজেলা কয়া ইউনিয়নের রায়ডাঙ্গা গ্রামের বাসিন্দা সাদেক আলী বলেন, বরকতউল্লাহ’র পরিবার এই গ্রামের মধ্যে সবচেয়ে শিক্ষিত পরিবার, এই পরিবারের সদস্যরা প্রকাশ্যে কোনো রাজনৈতিক দলের সাথে জড়িত নয়।

উল্লেখ্য, বাংলাদেশ প্রকৌশল বিশ্ববিদ্যালয়ের (বুয়েট) শিক্ষার্থী আবরার ফাহাদকে (২১) পিটিয়ে হত্যা করা হয়। রবিবার দিবাগত রাত তিনটার দিকে বিশ্ববিদ্যালয়ের শের-ই-বাংলা হলের নিচতলা থেকে আবরারের লাশ উদ্ধার করে পুলিশ।

নতুনসময়/আইকে