ঢাকা সোমবার, ২১শে জানুয়ারী ২০১৯, ৯ই মাঘ ১৪২৫


২০১৯ সালে মেসির যত রেকর্ডের হাতছানি


৪ জানুয়ারী ২০১৯ ১৪:৩০

আপডেট:
৪ জানুয়ারী ২০১৯ ১৭:১২

ক্লাব ও জাতীয় দলের হয়ে পঞ্জিকাবর্ষের সর্বোচ্চ গোলদাতা (৫১) হয়ে ২০১৮ সালকে বিদায় জানান লিওনেল মেসি। আর নতুন বছরেও বার্সেলোনার আর্জেন্টাইন তারকার সামনে রয়েছে একাধিক রেকর্ডের হাতছানি। বার্সার অধিনায়ক হয়ে এ বছর সম্ভাব্য সব শিরোপা জয়ের সুযোগ রয়েছে মেসির। আর ২০১৯ সালে মেসিকে যেসব ব্যক্তিগত মাইলফলক ডাকছে তার একটি চিত্র তুলে ধরা হলো।


এক ক্লাবে সর্বাধিক শিরোপা
এক ক্লাবের হয়ে সর্বাধিক ৩৬ শিরোপা রেকর্ড রায়ান গিগসের দখলে। ম্যানচেস্টার ইউনাইটেডের হয়ে এই কীর্তি গড়েন সাবেক এই ওয়েলশ মিডফিল্ডার। এ বছর বার্সেলোনা ট্রেবল শিরোপা (লা লিগা, কোপা দেল রে ও ইউয়েফা চ্যাম্পিয়ন্স লীগ) জিততে পারলে গিগসের রেকর্ড ছুঁয়ে ফেলবেন মেসি। আন্দ্রেস ইনিয়েস্তা বার্সেলোনা অধ্যায় শেষে চলতি মৌসুমে অধিনায়কের দায়িত্ব নিয়েই চ্যাম্পিয়ন্স লীগ জয়ের অঙ্গীকার ব্যক্ত করেন মেসি। ইউরোপের ক্লাব শ্রেষ্ঠত্বের আসরে চিরপ্রতিদ্বন্দ্বী রিয়াল মাদ্রিদের হ্যাটট্রিক শিরোপার আগে সবশেষ ২০১৫ সালে চ্যাম্পিয়ন হয় বার্সেলোনা।

বার্সার হয়ে সর্বাধিক ৩৩ শিরোপা রেকর্ড গড়ে ২০১৮-১৯ মৌসুম শুরু করেন মেসি। স্প্যানিশ সুপার কাপ জিতে ছাড়িয়ে যান ইনিয়েস্তাকে।

ইনিয়েস্তাকে টপকানোর হাতছানি
বার্সেলোনার জার্সিতে ম্যাচ খেলার দিক থেকেও মেসির সামনে ইনিয়েস্তাকে টপকানোর হাতছানি। ৬৫৭ ম্যাচ খেলে তালিকার তৃতীয় স্থানে রয়েছেন পাঁচবারের ব্যালন ডি’অর জয়ী (বর্ষসেরা খেলোয়াড়ের পুরস্কার)। আর ১৮ ম্যাচে মাঠে নামলেই ইনিয়েস্তাকে (৬৭৪) ছাড়িয়ে দ্বিতীয় স্থানে উঠে আসবেন মেসি। শীর্ষে থাকা আরেক স্প্যানিয়ার্ড কিংবদন্তি জাভি হার্নান্দেজকে ছুঁতে হলে আরো লম্বা পথ পাড়ি দিতে হবে। মেসির চেয়ে ১১০ ম্যাচ বেশি খেলেছেন জাভি (৭৬৭)।

লা লিগায় জয়ের রেকর্ড
লা লিগার ইতিহাসে সবচেয়ে বেশি জয়ের রেকর্ড ডাকছে মেসিকে। তার নামের পাশে শোভা পাচ্ছে ৩২৪টি জয়। আর ১১ ম্যাচ জিতলেই ইকার ক্যাসিয়াসকে ছাড়িয়ে যাবেন মেসি। রিয়াল মাদ্রিদ ক্যারিয়ারে ৩৩৪ ম্যাচে জয় কুড়ান এই অভিজ্ঞ স্প্যানিয়ার্ড গোলরক্ষক। ক্যাসিয়াস ছাড়াও মেসির সামনে রয়েছেন রাউল গঞ্জালেস (৩২৭) ও অ্যান্দোনি জুবিজারেত্তা (৩৩৩)। গত মাসেই লেভান্তের মাঠে (৫-০) দুর্দান্ত হ্যাটট্রিকে বার্সার হয়ে লা লিগার সবচেয়ে বেশি জয়ের রেকর্ড গড়েন মেসি। ছাড়িয়ে যান জাভি হার্নান্দেজকে (৩২২)। আর গত বছরের শেষ ম্যাচ (সেল্টাভিগোর বিপক্ষে ২-০) জিতে সংখ্যাটা ৩২৪-এ নিয়ে যান মেসি।

ষষ্ঠ গোল্ডেন বুট
ইউরোপের ঘরোয়া লীগে সর্বোচ্চ গোলদাতার পুরস্কার ‘ইউরোপিয়ান গোল্ডেন বুট’। মেসির সামনে টানা তৃতীয়বার সোনার জুতো উঁচিয়ে ধরার চ্যালেঞ্জ। আর কোনো খেলোয়াড়ের এই কীর্তি নেই। রেকর্ড সর্বাধিক ৫ বারের ইউরোপিয়ান গোল্ডেন বুট বিজয়ী মেসি। চারবার জেতেন ক্রিস্টিয়ানো রোনালদো। এবার লা লিগায় ১৫ গোলে ৩০ পয়েন্ট নিয়ে তালিকার তৃতীয় স্থানে রয়েছেন মেসি। শীর্ষে এস্তোনিয়ান ক্লাব নোম্মে কালিজুর ব্রাজিলিয়ান ফরোয়ার্ড লিলিউ। তার সংগ্রহ ৩১ গোলে ৩১ পয়েন্ট। মেসির সমান ৩০ পয়েন্ট নিয়ে দ্বিতীয় স্থানে সেনেগাল ফরোয়ার্ড এমবায়ে ডায়াগনে (২০ গোল)। তুরস্কের ক্লাব কাসিমপাসাতে খেলেন তিনি। ইউরোপের শীর্ষ পাঁচ লীগে (ইংল্যান্ড, স্পেন, ইতালি, জার্মানি, ফ্রান্স) প্রতি গোলের মান ২ পয়েন্ট। লীগ র‌্যাঙ্কিংয়ে ছয় থেকে ২১ পর্যন্ত ১.৫ পয়েন্ট ও এর নিচের লীগগুলোতে ১ পয়েন্ট।

জারার ল্যান্ডমার্ক
ক্যারিয়ারের ষষ্ঠ ‘পিচিচি ট্রফি’ জয়েও চোখ রাখছেন মেসি। এতে স্প্যানিশ ক্রীড়া দৈনিক ‘মার্কা’র দেয়া লা লিগার সর্বোচ্চ গোলদাতার পুরস্কারে তেমো জারাকে ছুঁয়ে ফেলবেন তিনি। সর্বাধিক ৬ বার এই খেতাব অর্জন করেন অ্যাথলেটিক বিলবাওয়ের কিংবদন্তি স্প্যানিয়ার্ড ফরোয়ার্ড তেমো জারা। গত দুই মৌসুমেই লা লিগায় সর্বোচ্চ গোলদাতা হন মেসি। আর পঞ্চমবার পিচিচি ট্রফি জিতে আলফ্রেডো ডি স্টেফানো, কুইনি ও হুগো সানচেজের পাশে বসেন বার্সার প্রাণভোমরা।

৫০তম হ্যাটট্রিক
২০১৯ সালে প্রথম হ্যাটট্রিক দিয়েই নতুন উচ্চতায় পৌঁছাবেন মেসি। পেশাদার ফুটবল ক্যারিয়ারে ৫০তম হ্যাটট্রিক থেকে আর মাত্র এক ধাপ দূরে বিশ্ব ফুটবলের এই খুদে জাদুকর। বার্সেলোনার জার্সিতে ৪৩টি হ্যাটট্রিক করেন মেসি। বাকি ৬টি হ্যাটট্রিক করেন আর্জেন্টিনার হয়ে।

রোনালদোকে পেছনে ফেলা
লা লিগার ইতিহাসে সর্বাধিক ৩৪টি হ্যাটট্রিকের রেকর্ড ক্রিস্টিয়ানো রোনালদোর দখলে। গত মৌসুমে ৯ বছরের রিয়াল মাদ্রিদ অধ্যায়ের ইতি টেনে জুভেন্টাসে পাড়ি জমান পর্তুগিজ সুপারস্টার। আর চিরপ্রতিদ্বন্দ্বী না থাকায় মেসির জন্য এখন লা লিগায় সর্বাধিক হ্যাটট্রিক রেকর্ড টপকে যাওয়াটাও সময়ের ব্যাপার। রোনালদোর পর ৩১টি হ্যাটট্রিক নিয়ে দ্বিতীয় স্থানে রয়েছেন মেসি।