ঢাকা বুধবার, ১৯শে ডিসেম্বর ২০১৮, ৫ই পৌষ ১৪২৫


১০ ডিসেম্বর সোহরাওয়ার্দীতে ঐক্যফ্রন্টের জনসভা


৬ ডিসেম্বর ২০১৮ ১৩:৪৮

আপডেট:
১৯ ডিসেম্বর ২০১৮ ০২:১২

ফাইল ফটো

আগামী ১০ ডিসেম্বর রাজধানীর সোহরাওয়ার্দী উদ্যানে জনসভা করবে জাতীয় ঐক্যফ্রন্ট। ওই জনসভায় একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচন সুষ্ঠু করতে ও খালেদা জিয়ার মুক্তির দাবি তুলে ধরা হবে। বৃহস্পতিবার নয়াপল্টনে দলের কেন্দ্রীয় কার্যালয়ে এক সংবাদ সম্মেলনে বিএনপির সিনিয়র যুগ্ম মহাসচিব রুহুল কবীর রিজভী এ কথা জানান।

প্রধান নির্বাচন কমিশনারকে উদ্দেশ করে রিজভী বলেন, জনগণের ভোটের অধিকার হরণ করে কাজী রকিব যে পথে হেঁটেছেন, বর্তমান সিইসি কেএম নুরুল হুদাও যেন সে পথেই চলতে শুরু করেছেন। নারায়ণগঞ্জের এসপিকে বদলি করে সেখানে আরও কট্টর আওয়ামীপন্থী ও বিতর্কিত এসপি হারুনকে পদায়ন করা হয়েছে।

তিনি আরো বলেন, নির্বাচনকে প্রহসনে পরিণত করে ফের ক্ষমতায় থাকতে নানা কলাকৌশল ও নীলনকশা করছে সরকার। আর এই প্রহসনের অংশ হিসেবেই খালেদা জিয়াকে নির্বাচন থেকে সরকার গায়ের জোরে দূরে রাখার চেষ্টা চালাচ্ছে। অন্যায় পথে নির্বাচন অনুষ্ঠান ছাড়া জনসমর্থনশূন্য আওয়ামী লীগের একাদশ সংসদ নির্বাচনে বিজয়ের অন্য কোনো উপায় নেই। তাই নির্বাচনী ব্যবস্থা এবং আজ্ঞাবাহী নির্বাচন কমিশনকে নিয়ন্ত্রণে রেখে আবার ক্ষমতায় যেতে চান। ক্ষমতা ধরে রাখতে বিরোধী দলের ওপর অত্যাচার, নির্যাতন-নিপীড়ন এবং যত রকম কৌশল আছে সরকার প্রয়োগ করছে।

বিএনপির এই নেতা বলেন, সরকারের পক্ষে ইসির নজিরবিহীন পক্ষপাতিত্ব ভোটারদের হতাশ ও ক্ষিপ্ত করে তুলছে। নির্বাচন সামনে রেখে দেশব্যাপী গ্রেফতারের মহোৎসব চলছে। মনোনয়নপত্র জমা দেয়ার পর থেকে গ্রেফতারের পরিমাণ বেড়ে গেছে। গতকাল পর্যন্ত দুই হাজার নেতাকর্মীর বিরুদ্ধে মামলা দেয়া হয়েছে। উদ্দেশ্যপ্রণোদিতভাবে চাপিয়ে দেয়া শত শত মামলার বোঝায় নির্বাচনের মাঠ দূরে থাক, ঘরে পর্যন্ত থাকতে পারছে না ধানের শীষের প্রার্থীর নেতা-সমর্থকরা। ধানের শীষে মনোনয়নপ্রত্যাশী ২৭ নেতা মিথ্যা মামলায় এখন কারাগারে আটক আছেন।